মুরাদনগরে স্ত্রীকে কুপিয়ে খুন, বন্ধুসহ স্বামী কারাগারে

সারাবাংলা

ফয়জুল ইসলাম ফয়সাল, মুরাদনগর থেকে : কুমিল্লার মুরাদনগরে স্ত্রী আখি আক্তারকে বটি দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগে বন্ধু সাদ্দাম হোসেনসহ আটক স্বামী সুমন মিয়াকে আদালতের মাধ্যমে সোমবার দুপুরে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। মাদকাসক্ত বন্ধুর সাথে যেতে বাধাঁ দেওয়ায় স্ত্রীকে খুন করা হয়। ঘটনার সাথে জড়িত বন্ধুসহ আটক স্বামী পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দিয়েছে। উপজেলার ধামঘর ইউনিয়নের পরমতলা গ্রামে ওই নির্মম ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নিহতের মা খোরশেদা বেগম (৫৫) বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেছেন। মামলা ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, ঘটনার শিকার পরমতলা গ্রামের মৃত মনু মিয়ার মেয়ে আখি আক্তারকে (২৮) বিগত ১২ বছর পূর্বে বিয়ে করেন পাশের দেবিদ্বার উপজেলার রাজামেহার গ্রামের শহীদ মিয়ার ছেলে সুমন মিয়া (৩০)। বিয়ের পর থেকেই সুমন মিয়া ঘর জামাই হয়ে স্বশুর বাড়িতে বসবাস করছিল। কিছুদিন অতিবাহিত হওয়ার পর আখি আক্তার টের পায় তার স্বামী মাদকাসক্ত। স্বামীকে মাদক থেকে ফিরিয়ে আনতে স্বজণদের নিয়ে শত চেষ্টা করে ব্যর্থ হন সে। এরই মধ্যে তাদের কোল জুড়ে আসে দুই মেয়ে ও এক ছেলে। কিন্তু মাদক থেকে ফিরে আসেনি সুমন মিয়া। বরং তার বন্ধু একই গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে সাদ্দাম হোসেনকে সাথে নিয়ে মাদক সেবনে আরো বেপরোয়া হয়ে ওঠে। শনিবার সন্ধ্যায় আখি আক্তার তার স্বামী সুমন মিয়াকে ওষুধ আনতে বলায় তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে আখি আক্তারের মা নিজেই মেয়ের জন্য ওষুধ আনতে দোকানে চলে যায়। ঘর খালি পেয়ে মাদকাসক্ত সুমন মিয়া ও তার বন্ধু সাদ্দাম হোসেন সবজি কাটার বটি দা দিয়ে আখি আক্তারের গলা, পেটসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে। ঘটনাস্থলেই তার নারী-ভূরি বেরিয়ে গেলে আখি আক্তার মাটিতে লুটিয়ে পরে। এ দিকে তার মা চোর চোর শব্দ শুনে ওষুধ না নিয়েই বাড়িতে রওয়ানা হয়। পথিমধ্যে শুনতে পায় জামাই সুমন মিয়া তার মেয়ে আখি আক্তারকে দা দিয়ে কুপিয়েছে। বাড়িতে গিয়ে ঘরে প্রবেশ করে আখি আক্তারকে রক্তাক্ত অবস্থায় মেঝেতে পরে থাকতে দেখে। এ সময় প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় তাকে দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত ডাক্তার আখি আক্তারকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। শনিবার রাত দেড়টায় চিকিৎসারত অবস্থায় সে মারা যায়। খবর পেয়ে কুমিল্লা কোতয়ালী থানা পুলিশ আখি আক্তারকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়না তদন্ত করান। অপর দিকে খবর পেয়ে মুরাদনগর থানা পুলিশ ঘাতক সুমন মিয়াকে দেবিদ্বার ও তার বন্ধু সাদ্দাম হোসেনকে নিজ বাড়ি পরমতলা থেকে গ্রেফতার করে।মুরাদনগর থানার ওসি সাদেকুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে দৈনিক ঢাকা প্রতিদিনকে বলেন, বন্ধুর সাথে মাদক সেবনে যেতে না দেওয়ায় সুমন মিয়া তার স্ত্রী আখি আক্তারকে বটি দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। ঘটনায় বন্ধু সাদ্দাম হোসেন তাকে সহায়তা করে। উভয়কে কুমিল্লার আমলী আদালতে সোপর্দ করলে বিজ্ঞ বিচারক তাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করার নির্দেশ দেয়।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *