মেহেন্দিগঞ্জে ইউপি নির্বাচন নিয়ে দুইপক্ষের সংঘাত

সারাবাংলা

বরিশাল ব্যুরো:
বরিশালের মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলার কাজীরহাট থানাধীন ভাষানচর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ঝর্ণাভাঙ্গা গ্রামে নির্বাচন স্থগিত সংবাদ কর্মীদের মধ্যে জানানোর জন্য দুই পক্ষের থেকে নিজ নিজ বাসায় সভা করা হয়। ২ প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিলের পর থেকেই তাদের সমার্থকরা বাড়ি বাড়ি প্রচার শুরু করে এবং সমর্থকরা নিজ নিজ প্রার্থীর প্রতিপক্ষ সমর্থকদের হুমকি দিতে থাকে। তবে বাসা কাছা কাছি থাকার কারণে ২ মেম্বর প্রার্থীর সমার্থকদের মধ্যে বিরোধের তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ২ এপ্রিল সন্ধ্যা ৭ টার দিকে ঝর্ণাভাঙ্গা স্কুলের সামনে উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ঘটলে দুই পক্ষের সংঘর্ষে প্রায় ২০ জন লোক আহত হয়েছে। ফুটবল মার্কার প্রতীকধারী মোখলেছুর রহমানের সমর্থক (মেম্বার পদপ্রার্থী) কর্মীরা একপর্যায়ে ৯ নং ওয়ার্ডের ঝর্ণাভাঙ্গা এলাকার সাবেক মেম্বার কবির বাগের লোকজনের উপর হামলা চালায় এবং তাদের দেশিয় অস্ত্র নিয়া ধাওয়া করে কুপিয়ে জখম করে। হামলায় সরাসরি প্রায় ৮-১০ জন আহত হয়ে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। মোখলেছ মেম্বার পদপ্রার্থীর সমর্থক কর্মীরা কবির বাগের কর্মীর একটি ঘরে তারা আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ফেলে এসময় স্থানীয় লোকজন আগুন নিভানোর আগেই বসত ঘর সহ অন্যান্য ঘরে থাকা সব মালামাল পুড়ে য়ায়। এবং বসত ঘর কুপিয়ে নষ্ট করে ফেলে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সমার্থক ডাঃ মোখলেছ এর লোকজন এলাকায় ঘোরাঘুরি করতে থাকে এবং পরিকল্পিতভাবে পাশের এলাকা থেকে প্রায় ৪০-৫০ জন ভাড়াটে গুণ্ডা বাহিনী খবর দিয়ে এলাকায় অরাজকতা সৃষ্টি করে প্রতিপক্ষ কবির বাগের লোকজনের উপর অতর্কিত সন্ত্রাসী হামলা চালায়। এবিষয়ে কবির বাগর বলেন, ভোটে নিশ্চিত পরাজয় ভেবে মোখলেছ সমার্থকরা আমাদের নেতা কর্মীদের উপরে হামলা চালায় আর আমার কর্মীদের উপরে অতর্কিত সন্ত্রাসী হামলা চালায় তাতে অনেকে আহত হয়েছেন এ ছাড়াও প্রায় দের লাখ টাকার ঘর আগুন দিয়ে পুরিয়ে ফলেছে ঘরে থাকা অনেক মালামাল পুরে গেছে প্রায় ৩ লাখ টাকার বেশি ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে, এছাড়া আমার কর্মীদের প্রত্যাকের ঘর কুপিয়ে নষ্ট করছে একটি ঘর থেকে ৭০ হাজার টাকা ও স্বর্ণ অলংকার তারা লুট করে নিয়েছে তবে এখনো তারা থামেনি । আমরা আমাদের জীবনের হেফাজতে জন্য কাজিরহাট থাকায় ফোন করলে পুলিশ এসে সন্ত্রাসী বাহিনীদের কাছ থেকে আমাদের উদ্ধার করে। আমাদের জীবনের হেফাজতের জন্য আমাদের ঘরে পুলিশ রেখে দেয়। তবে এখানেই থেমে থাকেনি এখনো আমাদের নেতা কর্মীদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন আমরা বাহিরে বের হতে পারি না। এ ব্যাপারে কাজীর হাট থানার তদন্ত পুলিশ কর্মকর্তা এসআই টিপু সুলতান লাল বলেন, পুলিশ তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নিবেন,পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাত থেকে ওই গ্রামে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। দুই পক্ষ থেকে এবং ৪ জন গ্রেফতার করা হয়েছে, থানায় মামলা হয়েছে যাহার নং ২,১। তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *