মোবাইল মেকারকে বটি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা কুমারখালী : জড়িত সন্দেহে আটক ২

সারাবাংলা

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:
কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে টাকা-পয়সা লেনদেনের ঘটনায় সৃষ্ট দ্বন্দ্বের জেরে তৌকির হোসেন (২৫) নামে এক মোবাইল মেকার যুবককে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গত শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় উপজেলার কয়া আবাসন এলাকায় সংঘটিত এই হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে ২ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ। নিহত যুবক তৌকির (২৫) কয়া আবাসনের মালিথাপাড়াস্থ বাসিন্দা বাবলু মালিথার ছেলে। আটক দু’জন হলেন- উপজেলার উত্তর কয়া কামারপাড়া গ্রামের বাসিন্দা আজবাহার আলীর ছেলে বিল্লু হোসেন (২০) এবং বিল্লুর বোন কয়া আবাসন প্রকল্পের বাসিন্দা মধু মিয়ার স্ত্রী যুথী খাতুন (২৩)।
ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী নিহতের চাচাত ভাই শরিফুল ইসলাম জানান, কয়েকদিন পূর্বে উত্তর কয়া আবাসনের আজবাহারের ছেলে বিপ্লব ওরফে বিল্লু (২০) তৌকিরের কাছে মোবাইল মেরামত করতে দেয়। তৌকির মোবাইল মেরামত করে তাকে ফেরত দিলে বিল্লু মোবাইল ফেরতের বিষয়টি অস্বীকার করে। এই ঘটনা নিয়ে তাদের মধ্যে বেশ কয়েকদিন যাবৎ গন্ডগোল চলছিল। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত শনিবার মাগরিবের নামাজের পর বিল্লু ও তার বোন যুথি খাতুন তৌকিরের বাড়িতে এসে মোবাইল ফেরত চায় এবং গন্ডগোলের এক পর্যায়ে বিল্লু তৌকিরকে বটি দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। গুরুতর আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে মারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কুমারখালী পুলিশ স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, মোবাইল অথবা তার বদলে টাকা আদায়কে কেন্দ্র করে তৌকির এবং বিল্লুর মধ্যে দ্বন্দ সৃষ্টি হয় তারই এক পর্যায়ে ঝগড়া মারামারি মধ্যে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তৌকিরকে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে পরি তৌকির মারা যায়। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার এবং এঘটনায় জড়িত সন্দেহের দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *