ময়মনসিংহ রেঞ্জ ৫ পুলিশ কর্মকর্তাসহ কৃষককে পুরস্কৃত করলেন ডিআইজি হারুন

সারাবাংলা

ময়মনসিংহ অফিস :
৯৯৯ এ ফোন করে গরু চুরির আধ ঘণ্টার মধ্যে কাভার্ডভ্যান ভর্তি চারটি গরু উদ্ধার করায় ফোনকারী গরুর মালিককে পুরস্কৃত করেছেন রেঞ্জ ডিআইজি ব্যারিষ্ট্রার হারুন অর রশিদ। বুধবার সকালে রেঞ্জ ডিআইজির কনফারেন্সরুমে কৃত লাল মিয়াকে পুরস্কৃত করা হয়। এসময় জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত সফলতায় আরও ৫ পুলিশ কর্মকর্তাকে পুরস্কৃত করা হয়।
ডিআইজি হারুন অর রশিদ বলেন, বিট পুলিশিংয়ে মাধ্যমে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এর ব্যাপক প্রচারণার ফলে জনগণের মধ্যে সচেতনতা বেড়েছে। জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এ সেবার আওতায় রেঞ্জে ৯৭৩টি কল এসেছে। অপরাধমূলক ঘটনায় তাৎক্ষণিক জাতীয় জরুরি সেবায় সংবাদ পেয়ে অপরাধ প্রতিরোধ সম্ভব হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, হালুয়াঘাটের কৃষক লাল মিয়ার গোহাল ঘর থেকে গত ৪ নভেম্বর চারটি গরু চুরি করে কাভার্ডভ্যানে করে চোররা পালিয়ে যায়। এসময় একটি গরু ডাক দেয়। কৃষক সজাগ পেয়ে তার গোয়াল ঘরে গরু না পেয়ে চিৎকার শুরু করে। পরে স্থানীয় একজনের মাধ্যমে ৯৯৯ এ ফোন দেয়। পরে পুলিশ হালুয়াঘাট, ফুলপুর তারাকান্দা ও ময়মনসিংহের কোতোয়ালী মডলে থানায় দ্রুত সংবাদ দেয়। কোতোয়ালী পুলিশ নগরীর শম্ভগঞ্জ থেকে কাভার্ড ভ্যান ভর্তি চারটি গরুসহ চার গরু চোরকে গ্রেফতার করে।
তিনি আরও বলেন, বিট পুলিশের জনক বর্তমান আইজিপি বেনজির আহমেদ ২০১০ সালে ডিএমপিতে বিট পুলিশের কার্যক্রম শুরু করেন। এরই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে অপরাধ দমন ও নিয়ন্ত্রণে আইজিপি বেনজির আহমেদ হয়ে দেশব্যাপী বিট পুলিশিং শুরু করেন। যার সুফল পাওয়া যাচ্ছে। বিট পুলিশ সম্পর্কে তিনি বলেন, আগে মানুষ থানায় আসত। এখন পুলিশ প্রতিটি বিটে গিয়ে মানুষের সাথে সম্পর্ক গড়ে তুলে, তাদের সাথে আস্থা, বিশ্বাস সৃষ্টি সমাধানযোগ্য ঘটনা তাৎক্ষনিক স্থানীয়দের সহায়তায় নিরসন করছে। এভাবে এই সময়ে এক হাজার সমাধানযোগ্য অপরাধ নিষ্পত্তি করা হয়েছে। এতে স্বর্তস্ফুর্ত সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। এ সময় শেরপুরে নালিতাবাড়ির একটি ঘটনা তুলে ধরে বলেন, একটি চুরি মামলায় মাত্র ৬ মাসের সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তি ১৬ বছর ধরে পলাতক থাকাবস্থায় বিট পুলিশিংয়ের মাধ্যমে তার পরিবারকে বুঝিয়ে আত্বসমর্পণ করান।
পরে ৫ জন পুলিশ কর্মকর্তাকে আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রণ, মামলার তদন্ত ও রহস্য উদঘাটন, ওয়ারেন্ট তামিল, সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার, মাদক উদ্ধার, বিট পুলিশিং ও জনবান্ধব পুলিশিং কার্যক্রম তরান্বিত করা এবং চোরাই মালামাল উদ্ধারে এবং কৃষক লাল মিয়ার হাতে সনদ বিতরণসহ পুরস্কৃত করা হয়। তারা হলেন, শেরপুরের নালিতাবাড়ি সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর আলম, ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা থানার ওসি বিপ্লব কুমার বিশ্বাস, ময়মনসিংহ ডিবির ওসি শাহ কামাল আকন্দ, নেত্রকোণা মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক সোহলে রানা, জামালপুরের নারায়ণপুর তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ আব্দুল লতিফ মিয়া ও শেরপুরের শ্রীবরর্দীর এএসআই নজরুল ইসলাম।
ময়মনসিংহ ডিবির ওসি শাহ্ কামাল জানান, জুলাই-সেপ্টেমবর মাসে আটোরিস্কা চোরচক্র,চোরাই অটোরিস্কা উদ্ধার, মানবপাচারকারী গ্রেফতার, ত্রিশাল থানায় সেলিনা হত্যার মামলার রহস্য উদঘাটন, মাদক পাচারে ব্যাবহৃত একটি প্রাইভেটকার, ইয়াবা ১২ হাজার পিচ, হেরোইন ৫০০ গ্রাম, চোরাই মটর সাইকেল, পাগলা থানা ইমাম হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন গ্রেফতার ৪ জন, কোতোয়ালী মডেল থানার মামলায় ৫টি অটো উদ্ধার ও ৬ জন গ্রেফতার, পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাইকারী আটক, পাগলা থানা অভিযান করে ৭৫০ পিচ ইয়াবাউদ্ধার, মাইক্রোবাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পুকুরে পরে যাওয়া দ্রুততম ঘটনাস্থলে গিয়ে মাইক্রোবাসে থাকা ১৪ জন যাত্রীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *