যুবনীতি বাস্তবায়নে সুনির্দিষ্ট কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নের আহ্বান বিশেষজ্ঞদের

জাতীয়

অনলাইন ডেস্ক : যুবসমাজের উন্নয়নে জাতীয় যুবনীতি প্রণয়নের ৪ বছর পেরিয়ে গেছে। কিন্তু তা এখনো বাস্তবায়ন শুরু হয়নি। আর এই নীতিমালা বাস্তবায়নে দ্রুত কার্যকর ও সুনির্দিষ্ট কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নের আহ্বান জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।
আজ বুধবার একশনএইড বাংলাদেশ ও ধ্রুবতারা ইয়ুথ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন আয়োজিত এক ভার্চুয়াল ওয়েবিনারে এ আহ্বান জানানো হয়।
একশনএইড বাংলাদেশের ম্যানেজার নাজমুল আহসান বলেন, জাতীয় যুবনীতি ২০১৭ বাস্তবায়নে দীর্ঘসূত্রিতার কারণে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জন সম্ভব হচ্ছে না। সরকারের গৃহীত যুবনীতি বাস্তবায়নের জন্য কর্মপরিকল্পনা গ্রহণের কথা থাকলেও গত চার বছরে তা শুরু হয়নি। কর্মপরিকল্পনা তৈরি হওয়ার আগেই যুবনীতির পর্যালোচনার সময়ের কাছাকাছি আমরা চলে এসেছি। শিগগিরই যুবনীতির কার্যকর বাস্তবায়নে রাজনৈতিক স্বদিচ্ছা, প্রসাশনিক উদ্যোগ না হলে নীতিমালা শুধু প্রণয়নের মধ্যে থেমে যাবে এবং যুবকদের উন্নয়নে কোনো কাজে আসবে না।
ওয়েবিনারে ধ্রুবতারা ইয়্যুথ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক অমিয় প্রাপন চক্রবর্তী অর্ক বলেন, দেশে বাজেট প্রণয়নের আগে বাজেটের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ব্যবসায়ী ও অন্যান্য সংশ্লিষ্টদের সাথে আলোচনা হয়। কিন্তু দেশের বিশাল জনগোষ্ঠী তরুণ ও যুকবদের নিয়ে কোনে আলোচনা হয় না। সরকারের সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় যুবকদের প্রতিনিধিত্বের কোনো সুযোগ থাকে না।
আয়োজিত ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে ওয়েবিনারে বয়স, জাতগত পরিচয়, শারীরিক প্রতিবন্ধী, গ্রামীণ যুব নারী এবং তৃতীয় লিঙ্গসহ সব যুবককে উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণের সুযোগ নিশ্চিত করে যুবনীতি বাস্তবায়নে কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নে বেশকিছু সুপারিশ তুলে ধরা হয়।
একশনএইড বাংলাদেশের ম্যানেজার নাজমুল আহসান, ধ্রুবতারা ইয়্যুথ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক অমিয় প্রাপন চক্রবর্তী অর্ক ও ধ্রুবতারা ইয়্যুথ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের প্রধান সমন্বয়ক কাজী সালমান হোসেনসহ যুব প্রতিনিধি ও গণমাধ্যমকর্মীরা বক্তব্য রাখেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *