রাণীনগরে গৃহবধূ আত্মহত্যার প্ররোচনা : শ্বাশুড়ী গ্রেফতার

সারাবাংলা

নওগাঁর রাণীনগরে গৃহবধু আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা শ্বাশুড়ী গ্রেফতার
নওগাঁ প্রতিনিধি:
নওগাঁর রাণীনগরে শিউলি বিবি (১৯) নামে এক গৃহবধূর আত্মহত্যা প্ররোচনার অভিযোগে স্বামী, শ্বশুড়, শ্বাশুড়ীসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় রাণীনগর থানা পুলিশ ওই গৃহবধূর শ্বাশুড়ীকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতার শ্বাশুড়ীকে  মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। উপজেলার আতাইকুলা মৎস্যজীবি পাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। গৃহবধূ শিউলি বিবি আতাইকুলা মৎস্যজীবী পাড়া গ্রামের সুমন আলীর স্ত্রী ও নওগাঁ সদর উপজেলার শৈলগাছী (দিঘীরপাড়া বাজার) গ্রামের ইমাম হোসেনের মেয়ে। গৃহবধূ শিউলির মা দোলা বেগম জানান, গত এক বছর আগে মেয়ে শিউলিকে রাণীনগর উপজেলার আতাইকুলা মৎস্যজীবী পাড়া গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে সুমন আলী (২২) এর সঙ্গে বিয়ে দেওয়া হয়। এরপর গত কয়েক মাস আগে থেকে পারিবারিক কলহের জের ধরে সুমনের পরিবারের লোকজন শিউলিকে শারীরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতন করতে থাকে। বিষয়গুলো নিয়ে কয়েক দফা বৈঠক করে মিমাংসাও করা হয়। এরপর গত ৪ এপ্রিল শিউলির ননদের মেয়ের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে যায়। সেখানে জন্মদিনের অনুষ্ঠানে স্বামী সুমন শিউলিকে মারপিট করে। এরপর ৫ এপ্রিল বাড়িতে আসলে দুপুরে একই জের ধরে পরিবারের লোকজন শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতে থাকে। এসময় নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে কিটনাশক পান করেন শিউলি। তাকে প্রথমে রাণীনগর ও পরে নওগাঁ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যায়। পরে নওগঁাঁ সদর হাসপাতালে শিউলির লাশ ফেলে রেখে সবাই পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় শিউলির মা দোলা বেগম বাদি হয়ে গত সোমবার রাতে মেয়েকে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে শিউলির স্বামী, শ্বশুড়, শ্বাশুড়ীসহ ৫ জনকে এজাহার নামীয় আরও ৪-৫ জনকে অজ্ঞাত নামা আসামি করে রাণীনগর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রেক্ষিতে রাতেই থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে শিউলির শ্বাশুড়ী কিরন বিবিকে (৫০) গ্রেফতার করেছে। এ ব্যাপারে রাণীনগর থানার ওসি শাহিন আকন্দ বলেন, গৃহবধূ শিউলি আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ এনে গৃহবধূর মা দোলা বিবি বাদি হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এঘটনায় গৃহবধূর শ্বাশুড়ীকে গ্রেফতার করে গতকাল মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। মামলার অন্য আসামিদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *