শনিবার ২১শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রামপালে লবনাক্ততার মধ্যেও আমনের ভালো ফলন

নভেম্বর ৮, ২০২০

সুজন মজুমদার, রামপাল থেকে :
বাগেরহাটের রামপাল উপজেলায় তীব্র লবনাক্ততা ও জলবায়ু পরির্বতনজনিত কারণে দীর্ঘদিন ধরে ধানের আবাদ আশংকাজনক হারে কয়েক বছর ধরে কমে গেলেও কৃষি বিভাগের নানামুখি পদক্ষেপ ও তৎপরতায় আমান ও বোরো আবাদ বৃদ্ধি পেয়েছে। যে কারণে এ উপজেলা ২/৩ বছর ধরে খাদ্যের স্বয়ংসম্পূর্ণ। কৃষি বিভাগের সূত্রমতে, ১ লাখ ৮১ হাজার ২২৯ জন জনসংখ্যার বিপরীতে এ উপজেলায় খাদ্য চাহিদার ৩২ হাজার ৬০৬ টন চাল। বর্তমানে উৎপাদন হচ্ছে ৩৬ হাজার ১৯০ টন। এর মধ্যে আমন চাল উৎপাদন হচ্ছে ১৭ হাজার ৬১৫ টন ও বোরো আবাদ হচ্ছে ১৮ হাজার ৫৭৫ টন।
চলতি আমন মৌসুমে এ উপজেলার ১০ ইউনিয়নে ৮ হাজার ২শ হেক্টর জমিতে আমনের আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে হাইব্রিড ০.৫ হেক্টর, উফশী ৩ হাজার ৯৯০ হেক্টর ও স্থানীয় জাতের ৪ হাজার ২০৫ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায়, সময়মত বৃষ্টিপাত হওয়ায় ও রোগবালাই তেমন না হওয়ায় এবং সার ও বালাইনাশক সঠিক সময় সরবরাহ করায় কৃষকরা তাদের কাংখিত ফসল ঘরে তুলতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করা হচ্ছে। উপজেলার পেড়িখালী বাজারের কৃষক এরশাদ হাকিম জুয়েল জানান, কৃষি বিভাগের সার্বিক সহযোগীতা, পরামর্শ ও তদারকীর কারণে আল্লাহর রহমতে গত বছরের চেয়ে এবার কম খরচে ভালো ফলন ঘরে তুলতে পারবো। একই কথা বলেন, হুড়কার তনয় মজুমদার, রামপালের সদরের অরবিন্দু মজুমদার, গোলাম কিবরিয়া ছোট, সিংগড়বুনিয়ার পল্লী চিকিৎসক এম এম মহিতুর রহমান। চলতি আমন মৌসুমে আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৭ হাজার ৮৭০ হেক্টর। তা বেড়ে আবাদ হয়েছে ৮ হাজার ২শ হেক্টর। যা ৩৩০ হেক্টর বেশি।
আমন আবাদের বিষয়ে রামপাল উপজেলা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট মহিউদ্দিন শেখ জানান, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে এবং তীব্র লবনাক্ততার প্রভাবে এতদিন ব্যপক ফসলহানি ঘটেছে। কৃষকদের বাঁচাতে ও এই এলাকার পরিবেশ ও প্রতিবেশ রক্ষা করতে হলে বৈজ্ঞানিক উপায়ে বেড়িবাঁধ দিতে হবে এবং লবন সহিষ্ণু ধানের আবাদ বৃদ্ধি করতে হবে। এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষ্ণা রানী মন্ডল জানান, কৃষকদের সময় উপযোগী করে বাস্তবমুখী প্রশিক্ষণ, কৃষি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের পর্যবেক্ষণ ও মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের ফলোআপ, প্রয়োজনীয় কৃষি উপকরণ বিতরণ, আধুনিক জাত নির্বাচন, হাইব্রিড জাতের আবাদ বৃদ্ধিসহ নানান পদক্ষেপের কারণে এবছর আমন আবাদে ভালো ফলন হয়েছে।
এ বিষয়ে রামপাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাধন কুমার বিশ্বাস জানান, প্রধানমন্ত্রী কৃষিকে অগ্রাধিকার খাত হিসাবে প্রাধান্য দিয়েছেন। দেশের মানুষের খাদ্য চাহিদা পূরণে এবং কৃষকদের বাঁচাতে নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহন করেছেন। বিশেষ করে কৃষিতে আধুনিক যন্ত্রপাতি সংযোজন এবং মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের ঘরে ঘরে তা পৌঁছে দেওয়ার মত যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহন করেছেন। তার নিদের্শনা মোতাবেক আবাদ যোগ্য জমি যাতে খালি পড়ে না থাকে, সে জন্য কৃষি বিভাগের পাশাপাশি উপজেলা প্রশাসন ও কাজ করছে। সরকারি বিভিন্ন সহায়তা বিশেষ করে সার, বীজ ও কৃষি উপকরণ বিতরণসহ সব বিষয় পর্যবেক্ষণ এবং সঠিক ব্যবস্থাপনার কারণে আমাদের এই উপজেলা এখন খাদ্যের স্বয়ংসম্পূর্ণ। এ জন্য তিনি কৃষকদের ও সংশ্লিষ্ট কৃষি বিভাগকে ধন্যবাদ জানান।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
সর্বশেষ

গণকমিশনের ভিত্তি নেই, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা প্রতিদিন অনলাইন || আজ শুক্রবার (২০ মে) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনালের ২৭তম বার্ষিক সম্মেলন শেষে

Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031