রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে আরও ১২ জনের মৃত্যু

জাতীয় লিড ১

ডেস্ক রিপোর্ট: রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে করোনা সংক্রমণ ও উপসর্গ নিয়ে আরও ১২ জন মারা গেছেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার (০৩ জুলাই) সকাল ৯টা থেকে রোববার (০৪ জুলাই) সকাল ৯টার মধ্যে হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা যান তারা।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী। তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় একজন করোনায় এবং ১০ জন উপসর্গে মারা গেছেন। আর করোনা নেগেটিভ হয়েও অন্যান্য শারীরিক জটিলতায় মারা গেছেন একজন।

এদের মধ্যে ছয়জনের বাড়ি বিভাগে করোনার হটস্পট রাজশাহী জেলায়। এ ছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জের তিনজন এবং নাটোর, নওগাঁ ও পাবনা জেলার একজন করে মারা গেছেন। করোনা সংক্রমণ ও উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে এসেছিলেন তারা।

রামেক হাসপাতাল পরিচালক জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় রামেক হাসপাতালে সর্বোচ্চ চারজন মারা গেছেন ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে। তিনজন করে মারা গেছেন ১৬ ও ১৭ নম্বর ওয়ার্ডে। এ ছাড়া হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকন্দ্র (আইসিইউ) এবং ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে একজন করে মারা গেছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণে মারা যাওয়া একমাত্র রোগীর বাড়ি রাজশাহী জেলায়। এ ছাড়া  উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ১০ জনের মধ্যে রাজশাহীর পাঁচজন,  চাঁপাইনবাবগঞ্জের দুজন, নওগাঁর একজন, নাটোরের একজন এবং পাবনার একজন রয়েছে। মারা যাওয়া একমাত্র নেগেটিভ রোগীর বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায়। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের মরদেহ দাফনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, ৪০৫ শয্যার রামেক হাসপাতালে রোববার সকাল ৯টা পর্যন্ত রোগী ভর্তি ছিলেন ৪৮৫ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন ২০ জন। করোনা নিয়ে এ পর্যন্ত হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ২১৩ জন। এ ছাড়া উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন ২০৬ জন। করোনা ধরা পড়েনি হাসপাতালে ভর্তি ৬৬ জনের নমুনায়। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৭৭ জন। এই এক দিনে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৬৪ জন।

শনিবার (৩ জুলাই) রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল ল্যাবে ১৮৮ জনের এবং রাজশাহী মেডিকেল কলেজ পিসিআর ল্যাবে ৩৭৪ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর মধ্যে রামেক হাসপাতাল ল্যাবে ৫৭ ও রামেক ল্যাবে ১২৯ জনের নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে। পরীক্ষার অনুপাতে রাজশাহীর ৩৩ দশমিক ৮৩ শতাংশ এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জের ২৯ দশমিক ৪৭ শতাংশ নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ১ জুলাই ২২ জন, ২ জুলাই ১৭ জন এবং ৩ জুলাই ১৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন রামেক হাসপাতালে। গত ২৯ জুন করোনা ইউনিটে সর্বোচ্চ ২৫ জন মারা যান। করোনা সংক্রমণ শনাক্তের পর হাসপাতালে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড এটি।

গত বছরের এপ্রিল থেকে এই বছরের জুন পর্যন্ত রামেক হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৭ হাজার ১৬১ জন রোগী। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়ে গেছেন ৫ হাজার ৯২৭ জন। এই ১৪ মাসে মারা গেছে ১ হাজার ৭৮ জন। এর মধ্যে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩৪৬ জনের। অন্যদের মৃত্যু হয়েছে উপসর্গ নয়তো অন্যান্য শারীরিক জটিলতায়।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *