রাস্তা নির্মাণের মেগা কর্মযজ্ঞ বিজয়নগরবাসীর স্বস্তির নিঃশ্বাস

সারাবাংলা

হাবিব, বিজয়নগর থেকে:
বিজয়নগর উপজেলাবাসীর দীর্ঘ দুর্ভোগ লাঘবের জন্য বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার কাজের মেগা কর্মযজ্ঞ শুরু হয়েছে। একযোগে চলছে উপজেলার সবগুলো গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার কাজ। উপজেলা রাস্তা, ইউনিয়ন রাস্তা বিভিন্ন সড়কের কাজ চলমান যা শেষ হলে উপজেলা মানুষের মধ্যে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফিরে আসবে। দীর্ঘ ৩/৪ বছর দুর্ভোগের পর উপজেলার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চান্দুরা-আখাউড়া রাস্তা কাজ বিরতি দিয়ে আবারও শুরু হয়েছে। বিজয়নগর উপজেলার আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা সিঙ্গারবিল বাজার থেকে চত্তরপুর ও আউলিয়া বাজার মোড় হয়ে হরষপুর দেওয়ান বাজার পর্যন্ত ১৭ কিলোমিটার রাস্তা সংস্কার চলছে। যা প্রায় ৪০ ভাগ কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে খুব শিগগিরই রাস্তাগুলো সুফল উপজেলাবাসী উপভোগ করবে। উপজেলা মোড় মির্জাপুর থেকে হরষপুর পর্যন্ত সাড়ে ৬ কিলোমিটার রাস্তার উন্নয়ন কাজে যাবতীয় নিয়মকানুন টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন। আশা করা যায় যেকোনো দিন কাজ করা হবে।
জানা যায়, প্রায় ৩/৪ বছর ধরে উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছিল। এলাকাবাসীর দাবির পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর হস্তক্ষেপে রাস্তা গুলো নির্মাণ কাজের উদ্যোগ গ্রহণ করে স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদফতর। নির্মাণ রাস্তা গুলোর কাজ বাস্তবায়ন করছে এলজিইডি। রাস্তা গুলো নির্মাণ ও সংস্কার না হওয়ায় জনদুর্ভোগ সব সময় লেগেই থাকতো। এমনকি প্রতিনিয়ত ছোট বড় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে পথচারীরা। রাস্তা গুলো নির্মাণ হলে এলাকাবাসীসহ পথচারীদের দুর্ভোগ লাঘব হবে। এ ছাড়া বিজয়নগর উপজেলার মোড় থেকে সহেবপুর হয়ে পাহাড়পুর যাওয়ার গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। এ রাস্তাটি সম্পন্ন হলে উপজেলার সঙ্গে সবচেয়ে বড় পাহাড়পুর ইউনিয়নবাসীর সঙ্গে সরাসরি উপজেলার সংযোগ সৃষ্টি হবে। এ ছাড়া চম্পকনগর থেকে আউলিয়া বাজার সড়কের কাজ চূড়ান্ত অনুমোদনের হয়ে টেন্ডার কার্যক্রমের অপেক্ষায় রয়েছে। আশা করা যাচ্ছে খুব শিগগিরই কাজ শুরু হচ্ছে। বিজয়নগর উপজেলাবাসীর স্বপ্নের রাস্তা শেখ হাসিনার সড়কের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। ওই সড়কের উপর তিতাস নদীসহ বিভিন্ন নদীর মধ্যে তিনটি বড় সেতুর কাজ প্রায় ৬৫ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে ২০২২ সালের মার্চ বা এপ্রিল মধ্যে কাজ সম্পন্ন হবে। এ রাস্তাটি সম্পন্ন হলে সম্পূর্ণ উপজেলাবাসী জেলা শহরের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ স্থাপন হবে।
বিজয়নগর উপজেলা প্রেসক্লাবের আহ্বায়ক এস এম কামরুল হাসান শান্ত বলেন, আমাদের এমপি মহোদয়ের একান্ত প্রচেষ্টায় উপজেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে। আশা করি উপজেলা প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিক নেতারাসহ উপজেলাবাসীর নজরদারিতে ভালোভাবে দ্রুত কাজ সম্পূর্ণ হবে। বিজয়নগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক প্রথম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট তানবীর ভূঞা বলেন, আমাদের প্রিয় নেতা এমপি মহোদয়ের একান্ত প্রচেষ্টায় আমরা কাক্সিক্ষত বিজয়নগর উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি রাস্তার কাজ একযোগে শুরু হয়েছে। এখন উপজেলাবাসীর প্রত্যেকটি নাগরিকের দায়িত্ব সঠিকভাবে কাজগুলো ঠিকাদার থেকে আদায় করে নেওয়া। এ ব্যাপারে বিজয়নগর উপজেলা প্রকৌশলী মো. আনিসুর রহমান বলেন, আমাদের সংসদ সদস্য স্যারের সার্বিক প্রচেষ্টা জনগণের অনেক আশা-আকাক্সক্ষার রাস্তা কয়েকটি রাস্তা কাজ এক সঙ্গে অনুমোদন হয়েছে। আমাদের অফিসের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ও কঠোর নজরদারিতে কাজের সার্বিক মান ঠিক রেখে দ্রুত রাস্তার কাজগুলো সম্পন্ন করা হবে। রাস্তাগুলো সম্পূর্ণ হয়ে গেলে বিজয়নগর উপজেলাবাসী জনদুর্ভোগ থেকে রেহায় পাবে এবং বিজয়নগর উপজেলা সার্বিক উন্নয়ন সাধিত হবে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *