রোজিনা ইসলামের বন্ধ ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাকের অভিযোগ

তথ্য প্রযুক্তি

ডেস্ক রিপোর্ট: প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামের বন্ধ (ডি-অ্যাকটিভেড) করে রাখা ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। তাতে রোজিনা ইসলাম আর প্রবেশ করতে পারছেন না। তাই রোজিনা ইসলামের ফেসবুকে একাউন্ট থেকে কোনো স্ট্যাটাস আসলে সে বা তার পরিবার এর দায়িত্ব নেবে না বলে জানিয়েছেন রোজিনা ইসলামের স্বামী মনিরুল ইসলাম মিঠু।

বুধবার (২৬ মে) সকালে আলাপকালে তিনি সব কথা বলেন।

মনিরুল ইসলাম মিঠু বলেন, গত ১৭ মে রোজিনা কোনো একটি কারণে তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নিষ্ক্রিয় (ডি-অ্যাকটিভেড) করেছিলেন। কিন্তু সোমবার (২৪ মে) রাতে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হঠাৎ দেখতে পান তার ফেসবুক চালু। তিনি জিমেইল অ্যাকাউন্টেও ঢুকতে পারছেন না।

পরিবার আশঙ্কা করছে, কেউ অসৎ উদ্দেশ্যে রোজিনা ইসলামের ফেসবুক আইডি ও জিমেইল আইডি অবৈধভাবে নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। তাই এই বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে থানায় একটি সাধারণ ডায়রি (জিডি) করা হয়েছে।

মনিরুল ইসলাম মিঠু আরও বলেন, এখন আমাদের সন্দেহ হচ্ছে যারা এই ফেসবুক ও জিমেইল একাউন্ট নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে, তারা মিথ্যা যেকোনো ধরনের মেইল বা স্ট্যাটাস দিতে পারে। তবে এসব স্ট্যাটাস বা মেইলের দায়িত্ব আমরা নেব না। কারণ ওই ফেসবুক ও জিমেইল একাউন্টে এখন আর রোজিনা ইসলামের দায়িত্ব নেই।

তিনি বলেন, এসব কথা উল্লেখ করে মঙ্গলবার (২৫ মে) রাজধানীর শাহজাহানপুর থানায় একটি সাধারণ ডাইরি করেছি। থানা থেকে বিষয়টি দেখা হবে বলে আমাকে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোজিনা ইসলাম এখন কেমন আছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার শারীরিক সমস্যাগুলোর নিয়মিত চিকিৎসা চলছে। তবে সে মানসিকভাবে খুব অসুস্থ। এখনো স্কয়ার হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন আছেন।

এদিকে জিডির বিষয়ে শাহজাহানপুর ডিইউটি অফিসার আব্দুর রফ বলেন, গতকাল রোজিনা ইসলামের স্বামী জিডি করেছেন। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

গত ১৭ মে কারামুক্ত রোজিনা ইসলাম পেশাগত দায়িত্ব পালনে সচিবালয়ে গেলে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা তাকে প্রায় ছয় ঘণ্টা আটকে রাখেন। সেখানে রোজিনা ইসলাম নির্যাতন-নিগ্রহের শিকার হন। তখন তার মোবাইলও কেড়ে নেন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা। পরে রোজিনাকে শাহবাগ থানা-পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে তার বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট ও দণ্ডবিধিতে মামলা করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। ওই মামলায় রোজিনার মোবাইল জব্দ দেখানো হয়। পাঁচদিন কারাবাসের পর রোজিনা ইসলাম গত রোববার জামিনে মুক্ত হন। এরপর তাকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন আছেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *