লঙ্কান দলে নতুন রহস্য স্পিনার, যাকে ‘বুঝবে না কেউ’

খেলাধুলা

ডেস্ক রিপোর্ট : মুত্তিয়া মুরালিধরন থেকে শুরু অজান্থা মেন্ডিস হয়ে ভানিন্দু হাসারাঙ্গা কিংবা কামিন্দু মেন্ডিস- রহস্য স্পিনার দিয়ে ক্রিকেট বিশ্বকে চমকে দিতে জুরি নেই শ্রীলঙ্কা দলের। এবার তারা অভিষেক করালো আরেক রহস্য স্পিনার মাহিশ থিকশানার। যাকে বুঝতে পারবে না কেউ- এমনটাই বলছেন অধিনায়ক দাসুন শানাকা।

মঙ্গলবার রাতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে ২০৩ রানের পুঁজি নিয়েও ৭৮ রানের বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছে শ্রীলঙ্কা। তাদের জয়ের নায়ক অভিষিক্ত স্পিনার মাহিশ থিকশানা। যিনি ১০ ওভারে ৩৭ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট। লঙ্কান স্পিনারদের মধ্যে এটিই অভিষেকে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড।

এমন বোলিং করে অধিনায়কের মন জিতে নিয়েছেন ২১ বছর বয়সী থিকশানা। একইসঙ্গে অফব্রেক, ক্যারম বল ও গুগলি করতে পারেন বিধায় ব্যাটসম্যানদের জন্য তাকে খেলা বেশ কঠিন। তাই লঙ্কান অধিনায়ক শানাকা মনে করেন, থিকশানাকে বুঝতে অনেক কষ্টই হবে সব ব্যাটসম্যানের।

থিকশানার দ্যুতিতে প্রায় পাঁচ বছর ব্যবধানে সিরিজ জেতার পর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে শানাকা জানিয়েছেন, এ রহস্য স্পিনারকে মূলত টি-টোয়েন্টির জন্য রাখা হয়েছিল। কিন্তু ঝুঁকি নিয়ে ওয়ানডেতে অভিষেক করিয়ে দিয়েছেন ভালো ফলের আশায়। ঠিক তাই পেয়েছেন শানাকা।

ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, ‘মূলত টি-টোয়েন্টিতে খেলানোর জন্য থিকশানাকে দলে এনেছিলাম। তবে আমি জানতাম যেখানে বল ঘোরে, সে উইকেটে থিকশানার মতো বোলারকে খেলা কষ্টকর হবে দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য। তাই অধিনায়ক হিসেবে ঝুঁকিটা নেই এবং কোচ-নির্বাচকরাও আমাকে সমর্থন দিয়েছেন।’

এখনও পর্যন্ত খুব বেশি স্বীকৃত পর্যায়ের ম্যাচ খেলেননি থিকশানা। তবে প্রমাণ করেছেন নিজের সামর্থ্য। অভিষেকের আগে লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারে ১১ ম্যাচে মাত্র ১৬.১৫ গড়ে শিকার করেছেন ১৯টি উইকেট। বৈচিত্রে ভরপুর এ স্পিনারের কাছ থেকে চাওয়াটাও বেশি লঙ্কান অধিনায়কের।

শানাকার ভাষ্য, ‘উচ্চপর্যায়ে খুব কম ম্যাচ খেলেছে থিকশানা। তবে টি-টেন, এলপিএলের মতো লিগ টুর্নামেন্ট খেলেছে। তাকে বুঝতে পারা একদমই সহজ নয়। আমার মনে হয় না, কোনো দলই তাকে সহজে বুঝতে পারবে। কারণ সে একজন স্কিলফুল বোলার। তাকে শুধু পড়তে পারাই কঠিন নয়, তার স্কিলও অনেক বেশি।’

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *