শখের গরু হাটে উঠবে

সারাবাংলা

সাইফ জামান, হালুয়াঘাট থেকে:
কোরবানির ঈদ উপলক্ষে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার আতকাপাড়া গ্রামে দেখা মিলেছে বিশালাকৃতির এক গরু। যার নাম রেখেছে শখের গরু। গরুটির দাম ৩ লাখ বিশ হাজার টাকা হাঁকাচ্ছেন গরুর মালিক মোঃ ছায়েদুর রহমান। বিশাল এই ষাঁড়টি দেখতে আশপাশের মানুষ প্রতিদিনই ভিড় করছেন। গরুর মালিক ছায়েদুর রহমান বলেন, শখ করে গরুটির নাম রেখেছি ‘শখের গরু’। এই গরুটি নিজ গোয়ালের বাছুর ছিল। আমি তিন বছর ধরে গরুটি লালন-পালন করি। প্রতিদিন গরুর পেছনে সময় দিই। চার দাঁতবিশিষ্ট গরুটি ৩ লাখ বিশ হাজার টাকায় বিক্রি করব। এবার শখের গরুকে হালুয়াঘাট কোরবানির পশুর হাটে তোলা হবে।তিনি আরও জানান, গরুর ওজন হবে প্রায় ১৬ মণ। প্রতিদিনই প্রায় ৬০০ টাকার খাবার দিতে হয়। খাবারের মধ্যে ছোলা,ভূসি,খেসারির ডাল, ভুট্টা, কুঁড়ো ও কাঁচা ঘাস রয়েছে।তিনি আরও বলেন,স্থানীয় বিক্রেতারা গরুটি দেখতে আসছেন,বিভিন্ন দাম বলছেন। গরুটির কাছাকাছি দাম পেলে তিনি বিক্রি করবেন।প্রতিবেশী হাসান জানান, মালিক খুব যত্ন করে গরুটির এর আগে এই গ্রামে কখনও এমন বড় গরু দেখিনি।
উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা.মো.শহীদুল আলম জানান,ছায়েদুর রহমানের গরুটি আমি দেখেছি।গরু লালন-পালনের বিভিন্ন সময় পরামর্শ নিয়েছেন। আমাদের ডিজিটাল স্কেলে ওজন করে দেখেছি গরুটির ওজন প্রায় ১৬ মণ। লাল রঙের বিশাল আকৃতির ষাঁড়টির ভালোই দাম পাওয়ার কথা।উপজেলায় গরু রিষ্ট-পুষ্টকরণ যারা করছেন তাদের অধিকাংশ খামারিদের প্রশিক্ষণ দিয়েছি এবং নিরাপদ মাংস উৎপাদনের জন্য প্রাকৃতিক পদ্ধিতে ও বৈজ্ঞানিক পদ্ধিতে গরু রিষ্ট-পুষ্টকরণ করেছেন এবং কোন নিষিদ্ধ হরমোন ব্যবহার করেন নাই।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *