শিবচরে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে চীফ হুইপ

সারাবাংলা

শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি
জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সাড়ে ৩ বছর দেশ পরিচালনা করেছিল। ৪৫ বছর পরও তার সেই নীতি আদর্শ পরিকল্পনা অনুসরন করেই দেশ পরিচালনার মাধ্যমে উন্নত বাংলাদেশ গঠন করা হচ্ছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি ক্ষমতায় থাকলে দেশ কিভাবে উন্নত হতে পারে তার প্রমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১২ বছরের মধ্যেই দিয়েছেন। আজকে বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে অনেক আগেই আমরা উন্নত বাংলাদেশে চলে যেতাম। শনিবার সকালে মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার চৌধুরী ফাতেমা বেগম পৌর অডিটরিয়ামে পৌরসভা কর্তৃক মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে চীফ হুইপ এসব কথা বলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শাজাহান খান এমপি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুনির চৌধুরী, উপজেলা চেয়ারম্যান আঃ লতিফ মোল্লা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামান, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান মোল্লা, সাধারন সম্পাদক ডাঃ মোঃ সেলিম, পৌরসভা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শংকর ঘোষ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পৌর মেয়র আওলাদ হোসেন খান। এদিন চীফ হুইপ উমেদপুর ইউনিয়নের উমেদপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন ভবন উদ্বোধন করেন। পরে বিকেলে পৌরসভার চৌধুরী ফাতেমা বেগম অডিটরিয়ামে উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় যোগদান করেন। সন্ধায় চৌধুরী ফিরোজা বেগম শিল্পকলা একাডেমির মুক্তমঞ্চে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগদান করেন।
চীফ হুইপ আরো বলেন, জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর এদেশে স্বাধীনতার ইতিহাসকে বিকৃত করা হয়েছে। স্বাধীনতার বিপক্ষের শক্তিকে পুন:বাসন করা হয়েছিল। বিএনপি স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের নাম ব্যবহার করে যে রাজনীতি করেছে তাতে তাদের কর্ম ও নামের কোন মিল ছিলোনা। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরে দালাল আইন বাতিল করা হয়েছে। যে সকল যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু হয়েছিল তা বন্ধ করা হয়েছিল। বিদেশ থেকে যুদ্ধাপরাধী গোলাম আজমকে এদেশে ফিরিয়ে এনে রাজনীতি করার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছিল। যুদ্ধাপরাধীকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী করা হয়েছিল। যারা স্বাধীনতার বিপক্ষে ছিল তাদেরকে এদেশের প্রধানমন্ত্রী করা হয়েছিল। পবিত্র সংসদেও রাজাকারকে স্পীকার করা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুর খুনিদের পুন:বাসন করে জাতীয় পতাকা দিয়ে তাদেরকে দেশ শাসন করার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছিল।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *