শ্রীনগরে ব্যস্ত লেপ তোষক কারিগর

সারাবাংলা

এমএ কাইয়ুম মাইজভান্ডারি, শ্রীনগর থেকে
মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলায় লেপ তোষক তৈরিতে ব্যস্ত কারিগররা বেড়েছে লেপ-তোষক কারিগরদের ব্যস্ততা। শীতের আগমনী ঠান্ডা হাওয়া বইতে শুরু করেছে শ্রীনগরে। শীতের আগমনী বার্তা দিচ্ছে আবহাওয়া। দিনে কিংবা রাতের প্রথমাংশে বেশ গরম কিংবা শীত অনুভূত না হলেও মাঝ রাতে ঠিকই কাঁথা মুড়িয়ে শুইতে হয়। দিনে দিনে শীত আরো বৃদ্ধি পাবে। শীত নিবারনের জন্যে মানুষ নতুন পুরাতন কাপড় কেনার জন্য দোকানগুলোতে ভিড় করছে। তাছাড়া শীতের কবল থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্যে উষ্ণতা ছড়াতে প্রাচীন কাল থেকেই লেপ, তোষক ও কম্বলের জুড়ি নেই। তাই এ সময়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে শ্রীনগরের লেপ তোষকের কারিগররা। উপজেলার বিভিন্ন হাটে-বাজারে ঘরে দেখা যায়, কারিগররা আপন মনে কাজে ব্যস্ত। কাজের ফাঁকেই চলছে ক্রেতাদের সাথে দরদাম কষাকষি। মালিকরা বলেন, দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির সাথে পাল¬া দিয়ে বেড়েছে তুলা ও কাপড়ের দাম। আর তাই ব্যবসায় তেমন একটা লাভ হচ্ছে না। উপজেলার প্রতিটি এলাকাতেই দেখা গেছে, লেপ তোষক তৈরির কারখানাগুলোতে কারিগরদের দম ফেলার ফুসরত নেই। বিভিন্ন দোকান ঘুরে দেখা গেছে, বিভিন্ন তুলার দাম গার্মেন্ট তুলা ৭০/৮০ টাকা, ফোম তুলা ২০০ টাকা, শিমুল তুলা ৫০০/৬০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। শ্রীনগর বাজারের দোকানদার হারুন বেপারী জানান, এখন প্রতিদিন কারখানায় ১০ থেকে ১২ টি লেপ তৈরি হচ্ছে। সারা বছর তেমন একটা কাজ না হলেও এখন শীতের মৌসুম, তাই ভালই রোজগার হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *