শ্রীপুরে মতবিনিময় সভা

সারাবাংলা

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি : আর্থিক মনন ও মানসিকতায় উন্নত বিশ্বের সাথে এগিয়ে থাকতে হবে। এ জন্য নির্বাচন আচরনবিধি ও শৃঙ্খলা রক্ষা করে আমাদের প্রমাণ দিতে হবে। আচরনবিধি মেনে আমরা একজন আরেকজনের প্রতি সহানুভূতি এবং সম্মান প্রদর্শন করবো। আমরা একই সমাজের বাসিন্দা। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আমরা যেন সহিংসতা না করি। আমরা এমন কিছু না করি, যেখানে সর্বশেষ অবস্থা হলো আইনের প্রয়োগ। ইতোমধ্যে নির্বাচনী এলাকায় ৩ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেয়া আছে। পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলার ভিজিলেন্স টিম ২৪ ঘন্টা নির্বাচনী এলাকা পর্যবেক্ষণ করছে। আমরা অবশ্যই আশা করি না, যেকোনো প্রার্থী বা তার কোনো সমর্থক যেন আইনের আওতায় না আসতে হয়।
শ্রীপুর পৌরসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীদের সাথে আইনশৃঙ্খলা ও আচরণবিধি প্রতিপালন বিষয়ক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য গাজীপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) এস এম তরিকুল ইসলাম উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। শুক্রবার বেলা ১১টায় শ্রীপুর উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে উপজেলা নির্বাচন অফিসের আয়োজনে মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন গাজীপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও শ্রীপুর পৌরসভা নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা কাজী ইস্তাফিজুল হক আকন্দ।

বিশেষ অতিথি গাজীপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) শামসুন্নাহার প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, অন্যায়ভাবে বা আচরনের ব্যাত্যয় ঘটিয়ে কেউ জয় নেয়ার চেষ্টা করবেন না। তাহলে আমরাও কঠোর হবো। আপনারা জনগনের কাছে পৌছানোর চেষ্টা করেন, তাদের সমর্থন পাওয়ার চেষ্টা করেন। শ্রীপুর পৌরসভা নির্বাচনের রির্টার্নিং কর্মকর্তা ও গাজীপুর জেলা নির্বাচন কর্মকতা কাজী ইস্তাফিজুল হক আকন্দ বলেন, এবারের নির্বাচনে ইলেকট্রনিক (ইভিএম) পদ্ধতিতে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। কেউ আচরণবিধি লঙ্ঘন করলে আমরা তাকেই আইনের আওতায় আনতে বাধ্য হবো। শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খোন্দকার ইমাম হোসেন বলেন, এ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে। এতে কোনো প্রকার ব্যাত্যয় ঘটবে না। বিএনপি মনোনীত প্রার্থী অ্যাডকেভাকেট কাজী খান, স্বতন্ত্র্য প্রার্থী শাহ আলম এবং ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী ফরহাদ আহমেদ মোমতাজী নির্বাচন আচরনবিধি সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রশ্ন তুলে ধরেন। এ সময় স্বতন্ত্র্য প্রার্থী শাহ আলম নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের দাবী জানান। রিটার্নিং কর্মকর্তা কাজী ইস্তাফিজুল হক আকন্দ প্রার্থীদের ওইসব প্রশ্নের উত্তর দেন এবং সেনা মোতায়েন প্রসঙ্গে বলেন জাতীয় নির্বাচন ছাড়া নির্বাচন কমিশন অন্য কোনো নির্বাচনে প্রয়োজন না হলে সেনাবাহিনী মোতায়েনের আহবান করেন না। মতবিনিময় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন শ্রীপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শামসুল আলম প্রধান, শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মবর্তা (ইউএনও) তাসলিমা মোস্তারী, শ্রীপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি প্রভাষক আবু বকর সিদ্দিক আকন্দ, শ্রীপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি আলমগীর হোসেন

প্রসঙ্গত, আগামী ১৬ জানুয়ারি শ্রীপুর পৌরসভা নির্বাচনে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ৮ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত একটানা ভোট গ্রহণ চলবে। ভোট গ্রহণ হবে ইলেকট্রনিক (ইভিএম) ভোটিং মেশিনের মাধ্যমে। নির্বাচনে মেয়র পদে ৪ জন, সাধারণ কাউন্সিলর হিসেবে ৪৯ এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলর হিসেবে ১১ জন প্রার্থী প্রতিদ্ব›দ্বীতা করছেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *