সাভারের দুই মহাসড়কে তীব্র যানজট, ভোগান্তি চরমে

জাতীয় লিড ১ সারাবাংলা

ডেস্ক রিপোর্ট : সাভারের দুই মহাসড়কে সকাল থেকেই তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়েছে। ঈদুল আজহা উপলক্ষে পশুবাহী পরিবহনের চাপে এমন যানজট সৃষ্টি হচ্ছে বলে দাবি ট্রাফিক পুলিশের।

রোববার (১৮ জুলাই) সকালে সাভারের তিনটি মহাসড়ক ঘুরে দেখা যায়, নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়ক ও টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে আছে গরুবাহী ট্রাক ও বিভিন্ন যানবাহন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কের বাইপাইল থেকে আশুলিয়া বাজার বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত ১৫ কিলোমিটার ও নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কের পুরাতন ডিইপিজেড থেকে নবীনগর বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত ৬ কিলোমিটার মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এ ছাড়া ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের অবস্থা স্বাভাবিক থাকলেও হঠাৎ করেই সৃষ্টি হয় যানজটের।

সকাল ৭টায় কারখানায় যাওয়ার উদ্দেশে বের হন জুবায়ের আহমেদ। তিনি বলেন, গতকাল রাত থেকেই সড়কে যানজট। কারখানা থেকে রাতে ফেরার সময় হেঁটে বাসায় এসেছি। আজ ঘুম থেকে দ্রুত উঠে অফিস যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিয়েছি। দেরি হলেই স্যাররা ঝামেলা করেন। এক ঘণ্টা হাতে নিয়েও আমাকে হেঁটে কারখানায় আসতে হলো।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ থেকে ট্রাকে ১২টি গরু নিয়ে আশুলিয়ার নরসিংহপুর এলাকার গরুর হাটে যাবেন সুকান্ত। তিনি গতকাল বিকেলে বের হয়ে সকালে পৌঁছেছেন বাইপাইল। তিনি বলেন, রাতে তেমন যানজট পাইনি। ভোর থেকেই একটু যানজটের সৃষ্টি হয়। বগাবড়ি এসে গাড়ি বন্ধ করে বসে আছি। ১০ মিনিটের পথ পাড়ি দিতেই সময় লাগল ৩ ঘণ্টা। শেষ রাতে যানজট একটু কম থাকলেও সকাল হওয়ার সঙ্গেই বেড়েছে তিনগুণ।

সাভার ট্রাফিক পুলিশের অ্যাডমিন আব্দুস সালাম বলেন, যানজট নিরসনে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে সারাদিন কোনো যানজট ছিল না। এখনো খুব একটা নেই। তবে টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কটি সিঙ্গেল হওয়ায় একটু যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। সেখানেও আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করছি। আশা করছি দ্রুতই যানজট নিরসন হবে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *