সিলেটে পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘটের ডাক

সারাবাংলা

ডেস্ক রিপোর্ট: উচ্ছেদের আগে স্ট্যান্ডের জন্য নির্ধারিত জায়গা বরাদ্ধ না দিলে আগামী সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) থেকে সিলেটে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন পরিবহন শ্রমিকরা।

বুধবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে এ তথ্য জানিয়েছেন সিলেট জেলা বাস সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ময়নুল ইসলাম। অবশ্য বেধে দেওয়া এ সময়ের মধ্যে দাবি মেনে নেয়া হলে ধর্মঘট থেকে তারা সরে দাঁড়াবেন বলেও জানিয়েছেন।

‘একই সাথে আগামী সোমবার সকাল ৬টা পর্যন্ত প্রশাসন এবং সিটি কর্পোরেশন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে সময় বেঁধে দিয়েছেন। এ সময়ের মধ্যে স্ট্যান্ডের স্থান নির্ধারণ করে না দেওয়া হলে তখন থেকেই সিলেট জেলায় অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করা হবে।’

শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুহিত জানান, ‘সিলেটের সকল ধরনের পরিবহনের মালিক-শ্রমিকরা মিলে এ ধর্মঘট পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তারা তাদের দাবি তুলে ধরে দু’য়েক দিনের মধ্যে সিলেটের প্রশাসন বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করবেন বলেও জানিয়েছেন।’

এদিকে সিসিকের উন্নয়ন কাজে বাধা দেওয়ার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন নাগরিক প্রতিনিধিরা। রাষ্ট্রীয় কাজে বাধাদানের ঘটনা সিলেটের উন্নয়ন বিরোধী চক্রের কাজ বলেও মন্তব্য করেছেন তারা। এজন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বানও করা হয়েছে।

রাতে নগর ভবনে এক মতবিনিময় সভায় এ আহ্বান জানানো হয়।

সভার শুরুতে দিনের ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ তুলে ধরেন সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। পরে নাগরিক প্রতিনিধিরা এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে নগরের উন্নয়ন কাজ অব্যাহত রাখতে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

মতবিনিময়ে সিসিক কাউন্সিলর, বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, লেখক-সাহিত্যিক, সাংবাদিক নেতা, ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ, শিক্ষাবিদ এবং ট্রাক মালিক গ্রুপের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অস্ত্রধারী ফাহাদ স্বেচ্ছাসেবক লীগের পদবীধারী নেতা:
সংঘর্ষের সময় আগ্নেয়াস্ত্রসহ আটক ফয়সল আহমদ ফাহাদের (৩৮) রাজনৈতিক পরিচয় জানা গেছে।

তিনি মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক। সংঘর্ষকালে অস্ত্র নিয়ে সিসিক মেয়র আরিফের দিকে তেড়ে আসছিলেন বলে অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে।

মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক দেবাংশু দাশ মিঠু সাংবাদিকদের জানান, ‘অস্ত্রসহ তার আটকের দায় দল নেবে না। এ জন্য তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এদিকে সংঘর্ষ ও অস্ত্রসহ আটকের ঘটনায় দুটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম আবু ফরহাদ।

তিনি জানান, ‘অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় ফাহাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা এবং পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় কয়েকজনের বিরুদ্ধে এসাল্ট মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।’

উল্লেখ্য, বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে সিলেট নগরের চৌহাট্টায় সড়কের পাশে মাইক্রোবাস ও প্রাইভেটকারের অবৈধ স্ট্যান্ড সরাতে সিটি কর্পোরেশনের অভিযানে বাধা দেওয়ায় সিসিক কর্মী ও পুলিশের মধ‌্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষে সিসিকের দুই কাউন্সিলরসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। ভাঙচুর করা হয়েছে বেশ কয়েকটি গাড়ি। প্রায় আধাঘণ্টা সংঘর্ষ চলার পর ১৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। এ ঘটনার পর নগরের বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করে পরিবহন শ্রমিকরা। পরে সন্ধ্যার দিকে তারা অবরোধ তুলে নেয়।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *