সীতাকুণ্ডে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা পাষণ্ড স্বামীর

সারাবাংলা

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি:
সীতাকুণ্ডে স্ত্রীকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে পালিয়ে গেছে স্বামী। গত শনিবার রাত ১০টার সময় পুলিশ রিমা আক্তার (১৯) নামের ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। উপজেলার ৫নং বাড়বকুণ্ড ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ নড়ালিয়া গ্রামে এঘটনা ঘটে। নিহত গৃহবধূ রিমা আক্তার ঔই এলাকার ইউনিয়ন পরিষদের চকিদার আবুল কালামের কন্যা। স্বামী আরিফুল করিম রাকিবের বাড়ি উপজেলার ১নং সৈয়দপুর ইউনিয়নের বাকখালী গ্রামে। তারা বাড়বকুণ্ড এলাকায় বসবাস করতেন। বাড়বকুণ্ড ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছাদাকাত উল্লাহ মিয়াজী ঢাকা প্রতিদিনকে এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ একরাম হোসেন বলেন, স্বামী-স্ত্রী দুইজন একা একটা ঘরে বসবাস করতো, তাদের ৬মাস বয়সের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। সন্ধ্যায় মেয়েটিকে পাশের একটি বাড়িতে রেখে আসে স্বামী রাকিব। এরপর সে ঘরে এসে তার স্ত্রী রিমা আক্তারকে গলায় উড়না পেঁছিয়ে হত্যা করে লাশ বীমের সাথে ঝুলিয়ে দিয়ে সে পালিয়ে যায়। রাতে শিশুকন্যাটিকে নিয়ে রিমার বাবা আবুল কালাম ঘরে এসে দেখতে পান তার মেয়ের লাশ পড়ে আছে। এ ঘটনা পুলিশকে জানানো হলে লাশটি উদ্ধার করে। পরিবারের ধারনা স্বামী-স্ত্রী দুইজনের মধ্যে মনোমালিন্য নিয়ে রাকিব রিমাকে হত্যা করে পালিয়ে যায়। রিমা আক্তারের স্বামী আরিফুল করিম পেশায় একজন ট্রাক ড্রাইবার। বিয়ের পর থেকে রিমা আক্তারকে যৌতুকের জন্য মারধর করতে বলে জানান রিমার বাবা আবুল কালাম।
সীতাকুণ্ড মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বনিক জানান, ঘটনাস্থল থেকে গলায় ফাঁস দেওয়া এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চমেক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *