সুরিয়া নদী ভাঙন এলাকা পরিদর্শন ইউএনওর

সারাবাংলা

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি
ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার মাওহা ইউনিয়নের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া সুরিয়া নদী ভাঙ্গন নিয়ে গত ১৪ সেপ্টেম্বর ঢাকা প্রতিদিন পত্রিকায় গৌরীপুর : সুরিয়া নদীর স্রোত বৃদ্ধি ॥ বিলীন হওয়ার আতঙ্ক ॥ নদী পারে দিন যাপন অনেক পরিবার শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হলে দৃষ্টিগোচর হয় গৌরীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও হাসান মারুফের। গত মঙ্গলবার সরেজমিনে পরিদর্শনে যান তিনি। এসময় সঙ্গে ছিলেন ইউপি সদস্য মতিউর রহমান (এন্টেশ মিয়া), কামরুজ্জামান নয়ানগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল কুদ্দুস ও স্থানীয়রা। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাসান মারুফ সুরিয়া নদীর ভাঙন পরিদর্শনে গিয়ে বলেন, নদী ভাঙ্গনরোধে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রসঙ্গত, কুশ্বাপাড়া, নয়াগনগর ও কুমড়ী গ্রামের ফসলি জমি, বসতভিটা, নয়ানগর গ্রামের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঈদগাহ মাঠ, বসতবাড়ি ও কুমরি গ্রামের পশ্চিম পাড়ার রাস্তাসহ নদীগর্ভে বিলীন যাচ্ছে। সেই সঙ্গে কয়েক একর আবাদি জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। কুমরী গ্রামের নদী পাড়ের বাসিন্দা শামীম, সুমন, শামছুল আলম, আবুল হাসেম, সাইফুল ইসলাম, রমজান, মজিদ, আব্দুল্লাহ, আল আমিন, কাশেম,এখলাছ মিয়া, কামরুল, সিরাজ, লিটন, মিরাজ, ইদ্রিস, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কর্মরত আব্দুল কাদির, মাওহা ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য মতিউর রহমান (এন্টেশ মিয়া) সহ আরও নাম না জানা আরও অনেকেই এই গুলো পরিবার ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় নদীর পারে দিনযাপন করছে কিছু পরিবারের ঘর নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ার পরে অন্যত্র নতুন বাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করছেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *