সৈয়দপুরে শেরে বাংলা সড়কটি পথচারীদের জন্য মৃত্যুফাঁদ

সারাবাংলা

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:
নীলফামারীর সৈয়দপুরে গুরুত্বপূর্ণ শেরে বাংলা সড়কটি পথচারীদের জন্য মৃত্যুফাঁদে পরিণত হচ্ছে। প্রতিদিন অসংখ্য ভারি যানবাহনের চাপে কোথাও অসংখ্য খানাখন্দক, কোথাও দেবে যাওয়া আবার কোথাও বিস্তৃর্ণভাবে উঠে গেছে কার্পেটিং। ফলে দিন দিন করুণদশায় পতিত হচ্ছে সড়কটি।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, শহরের তামান্না সিনেমা হতে ওয়াপদা মোড় পর্যন্ত সড়কটির দৈর্ঘ প্রায় ৫ কি:মি। বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে ২০১৮ সালে সৈয়দপুর পৌরসভার মাধ্যমে প্রায় ৫৫ লাখ টাকা ব্যয়ে সড়কটি সংস্কার করা হয়। কিন্তু সংস্কারের দু’বছর পার না হতেই দেখা দেয় অসংখ্য খানাখন্দক।
এলাকাবাসির অভিযোগ ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাজ ছিল অতি নিম্নমানের। সড়ক সংস্কার কাজে পাথর-পিচের মিশ্রণ অনেক দুর থেকে গরম করে আনায় ঠান্ডা হয়ে যায়। ঠান্ডা হয়ে যাওয়া ওই মিশ্রনেই কার্পেটিং করা হয়। তাছাড়া ওই সড়ক দিয়ে নীলফামারীসহ ডোমার, ডিমলা, জলঢাকা, ঠাকুরগঞ্জের দেবীগঞ্জ উপজেলার অসংখ্য মানুষ এবং যানবাহন সৈয়দপুরে আসা-যাওয়া করে। এছাড়া রেলপথে আমদানি করা গম, চাউল, পাথর ও কংক্রিটের স্লিপার সৈয়দপুর রেলওয়ে স্টেশনে নামিয়ে ভারি যানবাহনে বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়। এসব যানবাহনের নিয়মিত চলাচলের কারণে সড়কটির অনেক স্থানে দেবে গেছে। শিল্প সাহিত্য সংসদ, সৈয়দপুর প্লাজা, ২নং রেলওয়ে ঘুমটি, সৈয়দপুর থানা, রেলওয়ে স্টেশন, চিনি মসজিদ , ঘোড়াঘাট, গোলাহাট বাজার, গোলাহাট হিন্দুপাড়াসহ অনেক স্থানে সড়কের ইট-সুরকি উঠে বড় বড় গর্তের সৃস্টি হয়েছে এবং কার্পেটিং উঠে গেছে।
গোলাহাট এলাকার মোছাঃ পায়েল নামের এক গৃহিনী বলেন, বাজার থেকে বাসায় যেতে রাস্তায় অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। এলাকার নাম শুনেই চালকরা বলে রাস্তা খারাপ ওই দিকে যাব না। আর যে চালক যায় তাকে দ্বিগুন ভাড়া দিতে হয়। তিনি সড়কটি দ্রুত সংস্কারের দাবী করেন।
বাংলাদেশ ওয়ার্কাস পার্টি, সৈয়দপুর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রুহুল আলম বলেন, শুকনো মৌসুমে ধূলাবালি এবং বর্ষায় জলকাদায় নাকাল হতে হচ্ছে পথচারীদের। অনেক সময় রিকশা-সিএনজি চালিত অটোরিকশা উল্টে পড়ে আহত হচ্ছেন যাত্রীরা। তিনি নতুন পৌর পরিষদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। সৈয়দপুর পৌরভার মেয়র রাফিকা আকতার জাহান বেবী বলেন, আমি নতুন দায়িত্ব গ্রহণ করেছি তাই ওই কাজের ব্যাপারে কিছু বলতে পারব না। তিনি আরও বলেন, সড়কটি সংস্কারে অবশ্যই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *