স্তব্ধতা ভেঙে কক্সবাজার বিমানবন্দরে ফের বিমান চলাচল শুরু

জাতীয়

ডেস্ক রিপোর্ট: প্রায় দুই মাস বন্ধ থাকার পর কক্সবাজার বিমানবন্দরে আবারো কর্মচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। মঙ্গলবার (১ জুন) বেলা সোয়া ১১টার দিকে প্রথম ফ্লাইট অবতরণের মাধ্যমে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণে হওয়া স্তব্ধতা ভেঙেছে কক্সবাজার বিমানবন্দর। এর আগে সোমবার (৩১ মে) কক্সবাজার বিমানবন্দরে বিমান ওঠা-নামার অনুমতি দেয় বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। সব ধরনের স্বাস্থ্য সতর্কতা মেনে ফ্লাইট পরিচালনার নির্দেশ দেয় বেবিচক।

কক্সবাজার বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক আল আমিন ফারুক জানান, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণে দীর্ঘ দুই মাস বন্ধ থাকার পর মঙ্গলবার থেকে আবারো শুরু হয়েছে কক্সবাজার বিমানবন্দরে বিমান চলাচল। সকাল সাড়ে ৯টায় বেসরকারি এয়ারলাইন্স ইউএস-বাংলা ও নভোএয়ারের দুইটি ফ্লাইট ঢাকা থেকে যাত্রী নিয়ে কক্সবাজারের পথে আকাশে উড়ার কথা থাকলেও সাড়ে ১০টার দিকে বিমান দুটি ঢাকার রানওয়ে ছেড়েছে। সোয়া ১১টার দিকে বিমানগুলো কক্সবাজার অবতরণ করে।

ব্যবস্থাপক আল আমিন ফারুক আরও জানান, শুরুর দিনে বাংলাদেশ বিমানের কোনো ফ্লাইট কক্সবাজার বিমানবন্দরে আসা-যাওয়ার সিডিউল ছিল না। বুধবার (২ জুন) থেকে রাষ্ট্রীয় এ সংস্থাটির ফ্লাইট কক্সবাজার আসা-যাওয়ার সূচি রয়েছে।

ইউএস-বাংলা বিমানে মঙ্গলবার সকালের প্রথম ফ্লাইটে ঢাকা থেকে কক্সবাজার আসা মৎস্য ব্যবসায়ী জয়নাল আবেদীন জানান, ব্যবসায়িক কাজে ঢাকা যাওয়ার প্রয়োজন পড়লে ঘণ্টা তিনেক সময় হাতে নিয়ে বিমানে গেলে দিনের কাজ দিনে শেষ করা যায়। কিন্তু গত দুই মাস সবকিছু বন্ধ। গাড়ির যোগাযোগ শুরু হওয়ার পর পেটের দায়ে গাড়িতে ঢাকা গিয়ে ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে। মঙ্গলবার আবারো কক্সবাজারে বিমান যোগাযোগ শুরু হওয়ায় স্বস্তি ফিরেছে। কিন্তু প্রথম ফ্লাইট সাড়ে ৯টায় ছাড়ার কথা থাকলেও আকাশে উড়েছে সাড়ে ১০টায়। কক্সবাজার পৌঁছালাম বেলা ১১টা ১৫ মিনিটে।

নভোএয়ার সূত্র জানায়, ঢাকা থেকে সকাল সাড়ে ৯টা ও বিকেল ৩টা এবং কক্সবাজার থেকে বেলা ১১টা ৫ মিনিট ও বিকেল ৪টা ৩৫ মিনিটে প্রতিদিন দুইটি করে ফ্লাইট পরিচালনা করবে তারা।

কক্সবাজার বিমানবন্দরের নিরাপত্তা কর্মকর্তা উষা মং মারমা জানান, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রাদুর্ভাব কমাতে গত এপ্রিলে কক্সবাজার বিমানবন্দরে বিমান ওঠা-নামা বন্ধ করে দেয় বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। দীর্ঘ দুই মাস পর আজ থেকে আবার সচল হয়েছে বিমান যোগাযোগ। সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে কক্সবাজার বিমানবন্দরে ফ্লাইট পরিচালনা করা হচ্ছে। সব ধরনের স্বাস্থ্য সতর্কতা নিশ্চিতে সজাগ রয়েছে নিরাপত্তাকর্মী ও কক্সবাজার বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *