বুধবার ১৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৫ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

স্ত্রী নির্যাতনকারী এএসপি নাজমুস সাকিবকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত

সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক: যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতন ও ভ্রূণ হত্যার দায়ের পুলিশের এএসপি নাজমুস সাকিবকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

যৌতুক দিতে অস্বীকৃতি জানানোয় স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতন ও গর্ভপাত (ভ্রূণ হত্যা) ঘটানোর দায়ে পুলিশের এএসপি নাজমুস সাকিবকে জামিন না দিয়ে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। আজ মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৬ এর বিচারক আবদুল্লাহ আল মামুন আসামির জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠান।

এদিকে, নাজমুস সাকিবের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ পাঠিয়েছে পুলিশের ডিসিপ্লিন কমিটি।

গেল ১৮ আগস্ট নাজমুস সাকিবকে চার সপ্তাহের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেন বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন ও বিচারপতি কেএম জাহিদ সারওয়ারের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ। চার সপ্তাহের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন শেষে তাকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইতে বলা হয়। কিন্তু, আদালত তাকে পুনরায় জামিন না দিয়ে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।

গত ৪ মে যৌতুক দিতে অস্বীকৃতি জানানোয় দফায় দফায় শারীরিক নির্যাতন ও জোর করে গর্ভপাত ঘটানোর অভিযোগে রমনা থানায় মামলা দায়ের করেন নাজমুস সাকিবের স্ত্রী ইসরাত রহমান। মামলায় সাকিবের বাবা ও মাকেও আসামি করা হয়। মামলা দায়েরের পর দ্রুত বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলে দাবি করেছেন স্ত্রী ইসরাত রহমানের আইনজীবী।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, তিনবছর আগে নাজমুস সাকিবের সঙ্গে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের কন্যা ইসরাত রহমানের। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের দাবিতে শুরু হয় শারীরিক নির্যাতন। নির্যাতনের কারণে কয়েকবার তাকে হাসপাতালে ভর্তি হয়েও চিকিৎসা নিতে হয়। এমনকি ইসরাত রহমান সন্তান সম্ভবা হওয়ার পরও অমানুষিক নির্যাতন করা হয় বলেও অভিযোগ নাজমুস সাকিবের স্ত্রীর। এছাড়া নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় ইসরাত রহমানকে ক্রসফায়ারের হুমকিও দেন নাজমুস সাকিব।

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
সর্বশেষ

করোনায় আক্রান্ত ন্যান্সি

বিনোদন ডেস্ক : জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাতে গায়িকা নিজেই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান,

৩০ দিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন

ডেস্ক রিপোর্ট : করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ৩০ দিনের জন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী

Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31