হাজারো নেতাকর্মীর নয়নমণি

সারাবাংলা

সাইফুল ইসলাম, মানিকগঞ্জ থেকে:
বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে ২০০৭ সালে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ সদর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়তি গ্রহণের পর ২০১১ সালে মানিকগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সদস্য পদ লাভ করেন এম এ সিফাত কোরাইশী সুমন। বলিষ্ঠ নেতৃত্ব আর সাংগঠনিক দক্ষতার মাধ্যমে ২০১২ সালে মানিকগঞ্জ সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পান। দ্বায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই সুনামের সাথে সদর উপজেলা ছাত্রলীগের হাল ধরে ছাত্রলীগের আদর্শ এবং মূলধারার ছাত্রলীগের রাজনীতিতে এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তিনি।
জানা যায়, এম এ সিফাত কোরাইশী সুমন মানিকগঞ্জ সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করে বর্তমানে ইস্টার্ন বিশ^বিদ্যালয়ে এলএলবি’তে অধ্যয়নরত অবস্থায় সাফল্যের সাথে ২০১৭ সাল থেকে মানিকগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দ্বায়িত্ব পালন করছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের আস্থাভাজন এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সংগ্রামী সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের বিশ^স্ত কর্মী হয়ে সাংগঠনিক তৎপরতা চালিয়ে হাজার হাজার ছাত্রলীগ কর্মীর মন জয় করেছেন। ইতোমধ্যে তার নেতৃত্বে মানিকগঞ্জের ৭ উপজেলার মধ্যে ৪টিতে উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলায় হাজার হাজার ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর নিবেদিত প্রাণ হয়ে জেলার ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে ছাত্রলীগ নেতা সুমন। সিংগাইর পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি রাজ আহমেদ বলেন, সুমন ভাই একজন মেধাবী ছাত্রলীগ নেতা। তিনি যেভাবে বর্তমান জেলা ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের খোঁজ রাখেন আশা করি তার নেতৃত্বে আগামী দিনে জেলা ছাত্রলীগের রাজনীতি আরো সমৃদ্ধশালী হবে। সাটুরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শামীম বলেন, সুমন ভাই জেলা ছাত্রলীগের একজন নিবেদিত প্রাণ। তিনি সবসময় মাঠে ঘাটে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সাথে আছেন। ভবিষ্যতে জেলা ছাত্রলীগের রাজনীতিতে তিনি একজন উজ্জল নক্ষত্র। শিবালয় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিব হাসানাত আউয়াল বলেন, জেলা ছাত্রলীগ নেতা সুমন ভাই করোনাকালীন সময়ে জেলা ছাত্রলীগের অস্বচ্ছল নেতাকর্মীদের মধ্যে নিজের সাধ্যমত সাহায্য সহযোগিতা করেছেন। ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের যেকোন সমস্যায় পাশে থাকেন তিনি। সর্বোপরি তিনি একজন কর্মীবান্ধব ছাত্রলীগ নেতা। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ তার ভেতরে রয়েছে। মানিকগঞ্জের সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু সায়েম বলেন, এম এ সিফাত কোরাইশী সুমন জেলা ছাত্রলীগের দীপ্তশিখা, মুজিব আদর্শের অকুতভয় কর্মী। তার মত সফল নেতা পেয়ে আমরা তরুণ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গর্বিত।
জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এম এ সিফাত কোরাইশী সুমন বলেন, কমিটিতে পদই দুইটি। আমি নিজে দীর্ঘদিন জেলা ছাত্রলীগের সক্রিয় রাজনীতি করে আসছি। সবার সাথে রাজপথে ছিলাম এবং ভবিষ্যতেও থাকবো। বিভিন্ন উপজেলায় যারা ছাত্রলীগের নেতৃত্বে এসেছে সকলেই দীর্ঘদিন ধরে রাজনীতির মাঠে সক্রিয় ছিল। তাদের বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারণেই কমিটিতে স্থান পেয়েছে। এজন্য কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সংগ্রামী সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ভাই সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য দাদার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *