হাতিয়ায় ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা

রাজনীতি

ডেস্ক রিপোর্ট: নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার চর ঈশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ও আসন্ন ইউপি নির্বাচনে সদস্য পদে প্রার্থী রবীন্দ্র চন্দ্র দাশকে (৪৫) কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল বুধবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে চর ঈশ্বর ইউনিয়নের নন্দ রোডে আজাদ চেয়ারম্যানের পুরোনো বাড়ির দরজায় এ ঘটনা ঘটে। তবে এ ঘটনায় আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

রবীন্দ্র চন্দ্র দাশ হাতিয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহসভাপতি এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সদস্য ছিলেন।

আল আমিনের দাবি, মোটরসাইকেলের আলোতে তিনি আজাদ চেয়ারম্যানের ছেলে মো. অমি, ভাতিজা মো. সোহেল, রহিম ডাকাত ও নাজিম ডাকাতকে চিনতে পারেন। তাঁদের দেখে আল আমিন পেছনের দিকে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন। সন্ত্রাসীরা এ সময় রবীন্দ্রকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকেন। তিনি দৌড়াতে দৌড়াতে তাঁর চিৎকার শুনতে পান। একই সময় তাঁদের পেছনে থাকা মোটরসাইকেল দুটির লোকজন গুলির শব্দ শুনে পালিয়ে যান।

চর ঈশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল হালিম প্রথম আলোকে বলেন, তিনি গতকাল থেকে ঢাকায় অবস্থান করছেন। আজ ভোরে এলাকা থেকে খবর পেয়েছেন যে তাঁর পরিষদের সদস্য রবীন্দ্র চন্দ্র দাশকে সন্ত্রাসীরা তাঁর পুরোনো বাড়ির দরজায় হত্যা করে ফেলে গেছেন। এ ঘটনায় তাঁর কোনো লোক জড়িত নয় দাবি করে তিনি বলেন, ‘২১ জুনের ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কেউ ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করার জন্য এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে।’ তিনি এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করেন।

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যার খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ঘটনার খবর পাওয়ার পর রাতেই তাঁরা ঘটনাস্থলে গিয়ে রবীন্দ্র চন্দ্র দাশের লাশ উদ্ধার করেন। উদ্ধারকালে লাশের ডান হাতের কনুইয়ের নিচের অংশ পাওয়া যায়নি। এ ছাড়া ডান পায়ের গোড়ালির ওপরের অংশও কাটা। ঘটনার পর রাতে আজাদ চেয়ারম্যানের বাড়িতে অভিযান চালিয়েছে পুলিশ। তবে সেখান থেকে কাউকে আটক করা যায়নি।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *