হারের শঙ্কা কাটিয়ে স্বস্তিতে রিয়াল

খেলাধুলা

স্পোর্টস ডেস্ক: দেয়ালে পিঠ ঠেকে গিয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদের। গত শনিবার লা লিগায় মৌসুমের প্রথম এল ক্লাসিকো জিতে এই অস্বস্তি কিছুটা কাটিয়ে ওঠে তারা। কিন্তু মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়নস লিগে টানা দ্বিতীয় হারের শঙ্কায় পড়েছিল মাদ্রিদ ক্লাব।

তবে শেষ দিকে দুই গোল করে স্বস্তির নিশ্বাস ফেললো ১৩ বারের চ্যাম্পিয়নরা। বরুশিয়া মনশেনগ্লাদবাখের মাঠে ২-২ গোলের ড্র করেছে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা।

রিয়ালের নগর প্রতিদ্বন্দ্বী আতলেতিকো মাদ্রিদও দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে। শেষ দিকের গোলে তারা ওয়ান্দা মেত্রোপলিতানোতে ৩-২ এ এফসি সলজবুর্গকে হারিয়েছে। সহজ জয় পেয়েছে চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ, ম্যানচেস্টার সিটি ও লিভারপুল।

শাখতার দোনেৎস্কের কাছে হেরে টুর্নামেন্ট শুরু করা রিয়াল ঘাম ঝরিয়ে এই আসরের প্রথম পয়েন্ট উদ্ধার করলো। মার্কাস থুরামের জোড়া গোলে ৫৮তম মিনিটে ২-০ গোলে পিছিয়ে পড়েছিল মাদ্রিদ ক্লাব। ২৩ বছর বয়সী ফরাসি ফরোয়ার্ডের ৩৩ মিনিটের গোলে প্রথমার্ধ ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে শেষ করেছিল মনশেনগ্লাদবাখ।

জার্মান ক্লাব যখন স্প্যানিশ জায়ান্টদের বধ করার উদযাপনে মেতে ওঠার প্রস্তুতি নিচ্ছিলো, তখন রিয়ালের অবাক প্রত্যাবর্তন। ৮৭ মিনিটে একটি গোল শোধ দেয় তারা করিম বেনজেমার সৌজন্যে। কাসেমিরোর হেড পাস থেকে লক্ষ্যভেদ করেন ফরাসি ফরোয়ার্ড। আর যোগ করা সময়ের তৃতীয় মিনিটে একক প্রচেষ্টায় কাসেমিরো সমতা ফেরান।

‘বি’ গ্রুপের আরেক ম্যাচে ইন্টার মিলানকে গোলশূন্য ড্রয়ে রুখে দিয়েছে শাখতার। রিয়ালকে হারিয়ে ইউরোপিয়ান অভিযাত্রা শুরু করা ইউক্রেনিয়ান ক্লাব ২ ম্যাচ শেষে চার পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে। তাদের চেয়ে তিন পয়েন্ট পেছনে থেকে সবার শেষে রিয়াল (১)। টানা দ্বিতীয় ড্রয়ে সমান ৪ পয়েন্ট নিয়ে দুই ও তিনে মনশেনগ্লাদবাখ ও ইন্টার।

‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে চমৎকার পারফরম্যান্সে লোকোমোতিভ মস্কো একটি পয়েন্ট আদায় করার পথে ছিল। কিন্তু জোশুয়া কিমিখের দর্শনীয় গোলে বায়ার্ন ২-১ গোলে জিতেছে টানা দ্বিতীয় ম্যাচ। দ্বিতীয়ার্ধে মুহুর্মুহু আক্রমণে তাদের চমকে দিয়েছিল রাশিয়ান প্রতিপক্ষ। তবে ২০ গজ দূর থেকে নেওয়া আচমকা শটে কিমিখ জেতান বুন্দেসলিগা ক্লাবকে।

ইউরোপিয়ান মঞ্চে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে গোল করে বায়ার্নকে এগিয়ে দেন লিওন গোরেৎকা। ১৩ মিনিট পর দারুণ ফিনিশিংয়ে এই মিডফিল্ডার গোলমুখ খোলেন। এরপর দর্শক ভরা আরজেডডি এরেনায় প্রাণবন্ত মস্কোর চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ে বায়ার্ন।

পরে রবার্ট লেভানদস্কি একটি পেনাল্টি আদায় করলেও ভিএআরে তা বাতিল হয় এবং একটি শট পোস্টে আঘাত করলে ব্যবধান দ্বিগুণ করতে ব্যর্থ হয় জার্মানরা। তাদের এই সুযোগ নষ্টের মহড়ায় জে লুইসের পাস থেকে অ্যান্টন মিরানচুক মস্কোকে সমতায় ফেরান। শেষ পর্যন্ত ৭৯ মিনিটে কিমিখের গোলে চ্যাম্পিয়নস লিগে টানা ১৩তম জয় পায় বায়ার্ন।

‘এ’ গ্রুপে শতভাগ সাফল্য ধরে রেখে ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান মজবুত করেছে বায়ার্ন। তাদের কাছে ৪-০ গোলে হেরে চ্যাম্পিয়নস লিগ শুরু করা আতলেতিকো মাদ্রিদ ৩-২ গোলের রোমাঞ্চকর জয় পেয়েছে সলজবুর্গের বিপক্ষে। জোয়াও ফেলিক্সের জোড়া গোলে জিতে ৩ পয়েন্টে আতলেতিকো দ্বিতীয় স্থানে উঠে গেছে।

ম্যানচেস্টার সিটি তাদের দাপুটে ফর্ম ধরে রেখেছে। ‘সি’ গ্রুপে ৩-০ গোলে তারা হারিয়েছে মার্শেইকে, গোলের খাতায় নাম লেখান ফেরান তোরেস, ইকে গুন্ডোগান ও রহিম স্টার্লিং। টানা দ্বিতীয় জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে সিটিজেনরা। ৩-১ গোলে পোর্তোর বিপক্ষে জিতে টুর্নামেন্ট শুরু করেছিল তারা। একই দিন অলিম্পিয়াকোসকে ২-০ গোলে হারিয়ে ৩ পয়েন্ট অর্জন করে দ্বিতীয় স্থানে পোর্তো। সমান পয়েন্ট পেলেও গোল ব্যবধানে তাদের পরে অলিম্পিয়াকোস। সবার শেষে থাকা মার্শেইর ঝুলিতে কোনও পয়েন্ট নেই।

আয়াক্সকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ শুরু করা লিভারপুল ২-০ গোলে জিতেছে মিটজিল্যান্ডের বিপক্ষে। ডিয়েগো জোতা ও মোহাম্মদ সালাহর গোলে টানা জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে ‘ডি’ গ্রুপের শীর্ষে ২০১৯ সালের চ্যাম্পিয়নরা। গ্রুপের আরেক ম্যাচে আতালান্তা ২-২ গোলে ড্র করেছে আয়াক্সের সঙ্গে। চার পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে ইতালিয়ান ক্লাবটি। এক পয়েন্ট নিয়ে তাদের পরে আয়াক্স।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *