১ হাজার ২৩২ মে.টন ইলিশ রপ্তানি ভারতে

অর্থ-বাণিজ্য

ডেস্ক রিপোর্ট : ভারতে ৪ হাজার ৬০০ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানির অনুমতি থাকলেও বেনাপোল বন্দর দিয়ে ২ দফায় রপ্তানি হয়েছে ১ হাজার ২৩২ মেট্রিক টন ইলিশ। বেনাপোল মৎস্য পরিদর্শন ও মান নিয়ন্ত্রণ ইন্সপেক্টর আসওয়াদুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, ১১৫টি প্রতিষ্ঠানকে ৪০ মেট্রিক টন করে মোট ৪ হাজার ৬০০ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয় । প্রথম দফায় ২২ সেপ্টেম্বর থেকে ১০ অক্টোবরের মধ্যে বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতে ইলিশ রপ্তানি হয় মাত্র ১ হাজার ১৩৭ মেট্রিক টন।

তবে ৪ অক্টোবর থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহন, বিক্রি ও বাজারজাত নিষিদ্ধ ঘোষণা করায় ইলিশ রপ্তানি বন্ধ হয়ে যায়।

পরে ২৬ অক্টোবর ভারতে ইলিশ রপ্তানির সময় বাড়িয়ে আরও একটি প্রজ্ঞাপন দেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। প্রজ্ঞাপনের পর ২৮ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত মাত্র ৯৫ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানি করা হয় ভারতে। প্রতি কেজি ইলিশের রপ্তানি মূল্য ১০ মার্কিন ডলার ধরা হয়েছে। ভারত ও বাংলাদেশ দুই দেশের কাস্টমস থেকে শুল্কমুক্ত সুবিধায় ইলিশের এসব চালান রপ্তানি করা হচ্ছে বলে কাস্টমস সূত্র জানায়।

ইলিশ রপ্তানিকারক সততা ফিস ট্রেডার্সের মালিক আব্দুল কুদ্দুস জানান, সরকার ভারতে ৪ হাজার ৬০০ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছিলেন। কিন্তু বাজারে ইলিশ সংকট ও মূল্য বৃদ্ধির কারণে অনেকেই সময়মত ইলিশ রপ্তানি করতে পারেনি। দ্বিতীয় দফায় সময় বৃদ্ধি করে রপ্তানির অনুমতি দিলেও মাত্র ৯৫ মে. টন ইলিশ রপ্তানি হয়েছে।

দেশে উৎপাদন ঘাটতি থাকায় ২০১২ সাল থেকে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ করে সরকার। পরবর্তীতে ২০১৯ সাল থেকে প্রতি বছর দুর্গা পূজার আগে ভারতে ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দেয় সরকার।

বেনাপোল মৎস্য পরিদর্শন ও মান নিয়ন্ত্রণ অফিসের পরিদর্শক আসওয়াদুল ইসলাম বলেন, ‘দ্বিতীয় দফায় ২৮ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতে ৯৫ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানি হয়েছে।’

 

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *